Recent Posts

ভালো থেকো বাংলাদেশ

ভালো থেকো বাংলাদেশ

 

৷৷ ‘মোরা’ ডরবো না ৷৷

সুখ-দুখে একসাথেই বাঁচি

~ ভাই-ভাই সতর্ক আছি ~

প্রাণ অফুরান সাহস যাচি

দূর্যোগে

৷৷ হার মানবো না ৷৷

 

॥শান্তি॥ ~ সৌমিত্র

|| i-চিন্তন # অনুকথনের বুলেটিন-১ ||

|| অনুকথনের বুলেটিন-১ ||

 

i-চিন্তন সাহিত্য আন্দোলন ৷৷ তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির সফল প্রসারের সাথে সাথেই জনজীবনে যুগবদলের স্পষ্ট পূর্বাভাষ ছিলো ৷ বিজ্ঞান-প্রযুক্তির সাথে সাথে জনজীবনের নানান কিছু সমানতালে এগিয়ে চলেছে ৷ কবিতা /সাহিত্য পিছিয়ে থাকবে কেন ? আমি অত্যন্ত গর্ব বোধ করে বলতাম যে উপনিষদযুগের ঋষি-কবিরাই তাঁদের কাব্যকথায় মানবজাতিকে আলোর দিশা দেখিয়েছিলেন ৷ তাই বিজ্ঞান-প্রযুক্তির অগ্রগতির সাথেসাথেই আমরা কবিতাচর্চাকেও সমানতালে এগিয়ে নিয়ে যাবো ৷ চেয়েছিলাম বিজ্ঞান-প্রযুক্তি থেকে জনজীবন যেমন রসদ নেবে, কবিতাও নেবে ৷ আবার আমাদের কবিতাচর্চা থেকেও বিজ্ঞান-প্রযুক্তি কিংবা সাধারণ জনজীবন যথেষ্ট উপকৃত হবে ৷ আমার লেখালেখির সূচনা এমন ভাবনা থেকেই ৷ সেই স্কুলবেলা থেকেই ডি-এক্সইং-এর সুবাদে আমার নিয়মিত সক্রিয় যোগাযোগ ছিলো পৃথিবীর প্রায় চল্লিশটি দেশের সাথে ৷ পশ্চিমবঙ্গে ইন্টারনেট অত্যন্ত অপ্রতুল ৷ রেডিও আর চিঠিপত্রের মাধ্যমেই গোটা পৃথিবীর খবরাখবর রাখতাম ৷ কিন্তু সামান্যতম সুযোগটুকুও কাজে লাগাতাম আমাদের i-চিন্তন সাহিত্য আন্দোলনের জন্য ৷ আন্তর্জাতিক পরিস্থিতির সর্বসাম্প্রতিক রসদ যেমন নিতাম, তেমন বাংলা থেকে বিশ্বব্যাপী নিজেদের সেরাটা ছড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যেতাম ৷ এই উদ্যোগে আমরা সফল ৷ এখন পৃথিবীর যেকোনো বড় শহরে যান, এমনকি কিছু কিছু গ্রাম বা মফস্বল শহরে ৷ ঘুম ভেঙে দরজা খুললেই রাস্তার ধারে নানান বহুজাতিক সংস্থার হোর্ডিং-বিজ্ঞাপনগুলির দিকে চোখ রাখুন ৷ দেখুন অধিকাংশ ক্ষেত্রেই সেই বিজ্ঞাপনের ভাষা / লিখনরীতি ‘চ্যাট মোড’ ৷ যার প্রবর্তন পশ্চিমবঙ্গের মেদিনীপুরের ছোট্ট গ্রাম সিংহপুর (বিদ্যাসাগর মহাশয়ের পবিত্র জন্মভূমি বীরসিংহ পার্শবর্তী) থেকে ৷ কিন্তু অনেকেই জানার চেষ্টা করেননি লিখনরীতি ‘চ্যাট মোড’ কী ? ‘ব্রাউজিং মোড’ কী? ‘i-চিন্তন’ কী ? এমনিতেই আমরা আত্মবিস্মৃত জাতি ৷ তার উপর যেসব চিন্তকরা আমাদের বিষয়ে সক্রিয়ভাবে আগ্রহী ছিলেন ৷ তাঁদেরও কেউ কেউ এইসব নানান বিষয়ের নাম পাল্টে যে যার সে তার প্রচার-প্রসারের পসরা সাজিয়ে বসেছেন ৷ কিন্তু আবহমান কবিতার স্বার্থে শক্তিশালী নবীনপ্রজন্ম গড়তে আমাদের নিরন্তর প্রয়াস অব্যাহত আছে ৷ আমাদের নানান কর্মকাণ্ডের সাথে সাথেই আগ্রহীদের জন্য এই যুগান্তকারী চিন্তাচেতনার যথার্থ উপস্থাপনের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি ৷ ফেসবুকে এই ‘ i-চিন্তন কর্মশালা’য় দয়া করে কোনো কুতার্কিক অংশ নেবেন না ৷ প্রশ্ন থাকলে অবশ্যই যথাযথভাবে করবেন ৷ আমরা সময় সুযোগ ও সাধ্যমতো উত্তর দেবো ৷ কুতর্কের প্রসঙ্গ আনলে তাঁকে যখন ইচ্ছা ছাঁটাই করবো ৷ জানার আনন্দে থাকুন ৷ জানার আনন্দে প্রশ্ন করুন ~ আলোচনায় অংশ নিন ৷ আমাদের এই ‘অনুকথনের বুলেটিন’-এ ‘i-চিন্তন সাহিত্য আন্দোলন’-এর বিগত দিন থেকে তুলে নিয়ে আসছি আমাদের আন্দোলনের পুরানো কথাকেই ৷ আবার ছাপার প্রত্যাশায় ৷ আলোচনার সবটাই ISBN যুক্ত’ i-চিন্তন ‘ পুস্তকের অংশবিশেষ ৷ ভালো থাকুন সকলে ৷ দিন আনন্দময় হোক ৷

~ সৌমিত্র রায়

৷৷শান্তি৷৷

সৌমিত্র রায় // নিয়মিত কবিতাচর্চা // সিংহপুর ০৩-০৯-২০০৩ রাত্রি ৯টা৩৬

নিয়মিত কবিতাচর্চা
সিংহপুর ০৩-০৯-২০০৩ রাত্রি ৯টা৩৬ ॥ বাতাস সবার স্বর সঞ্চারিত করে আপন স্পন্দনে আমার স্পন্দিত স্বপ্ন মিশে যায় বাতির আলোয়, পুড়ে ছাই হয় আশ্রিত অবাঞ্ছিত অন্ধকার, বাতাস পারো কি তোমার স্বপ্ন এভাবে পুড়িয়ে পুড়িয়ে খাঁটি করে নিতে, বিশ্বের বিচিত্র কণ্ঠস্বরে হেঁটে বেড়ায় মেঘ মেঘের ছায়া, দু-চোখ বুজলে দেখি কবি পুস্কিনের স্মৃতিস্তম্ভের ছায়ায় প্রাচ্যের শুভেচ্ছা, আমি বেশ আছি পুস্কিন, টেবিলে খবরবন্দি ধর্ষণের আর্তনাদ, কানে বাজে বিস্ফোরণের আওয়াজ, পাশ কেটে ঘরে ফিরি জনযুদ্ধকৃত হুমকি-লাশ দেখে, বাতাসে ইচ্ছার তুলি টানি, যা খুশি, তারাস বুলবার সাথে পাড়ি দিই সেচ-এ, রে পাষাণ সময় তোমার মসৃণ স্পন্দনে লুকিয়ে থাকা কঠোরতা আমাদের ঘুম কেড়ে নেয়, তবুও জল স্বাচ্ছন্দ্য তরলতায়, তবুও ভোরেই স্বপ্ন ভিড় করে, আমাদের স্বপ্ন ভেজা শিশিরের স্বাচ্ছন্দ্য তরলতায় সরলতায়, পাষাণ বরফে বদ্ধ নয় ৷

 

২০০৩ সালে ভয়েস অব রাশিয়ায় প্রচারিত , পরে কবিতা পাক্ষিক পত্রিকায় প্রকাশিত ও ‘হিজিবিজি’ গ্রন্থে গ্রন্থিত আমার কবিতা ৷ আপনাদের জন্য তারই একটি ৷

নিয়মিত কবিতাচর্চা // সৌমিত্র রায়

নিয়মিত কবিতাচর্চা
আলিপুর সেন্ট্রাল জেল কোয়ার্টার ॰১-১১-২০০৩ রাত্রি ৮টা ৪ ॥ শিলাবতীর ঢেউ চলমান চিন্তাচিন্তনে কাঁপন লাগিয়েছিল, সেই কম্পনের শব্দ ছুঁয়ে আমার ব্যক্তিগত ডায়েরির শূন্য পাতা আছে কিছু ভাবনার প্রতীক্ষায়, এ্যাসট্রের শূন্যতা জানি না কীসের জন্য অপেক্ষমাণ, না আমার স্বপ্নের জন্য নয়, হয়তো-বা স্বপ্ন-পোড়া ছাইয়ের অপেক্ষায় মগ্ন সে, লক্ষ কর ফুলদানির নকল ফুল হাওয়ায় কাঁপছে, ঝরে পড়ছে সৌন্দর্য, শিলাবতীর ঘোলাটে আর্তনাদ তার সৌন্দর্যে মিশে যায় সাদা পাতায়, সুন্দরের জন্ম আছে তাই তার আছে ব্যক্তিগত আর্তনাদ, কালীঘাটে মনসাচরণ মণ্ডলের দোকানে তোলা ঝাঁকায় যে জন্মজড়ুল বসবাস করে, তার কোনো কাঁপন নেই আছে শ্রমিকের নিঃশব্দ আর্তকথা, আমতা রোড জংশনের ধারে একটি জবাফুলের ইচ্ছা সেই আর্তস্বরে মিশতে পারেনি, হয়তো কোনো শূন্যতার অভাবে, আসলে মিলতে গেলে মিশতে গেলে শূন্যতা চায়, একবুক শূন্যতা ৷

বিশিষ্ট আভিধানিক হরিচরণ বন্দোপাধ্যায়-এর জন্মদিন

আজ ২৩ জুন ।

আজ বিশিষ্ট আভিধানিক হরিচরণ বন্দোপাধ্যায়-এর জন্মদিন ।

বিশিষ্ট আভিধানিক ও অনুবাদক হরিচরণ বন্দোপাধ্যায়-এর জন্ম ১৮৬৭ সালের আজকের দিনে (২৩ জুন ) চব্বিশ পরগনার এক গ্রামে । বাংলা ভাষার অন্যতম বৃহত্ অভিধান বঙ্গীয় শব্দকোষ-এর স্রষ্টা হরিচরণ বন্দোপাধ্যায় পতিসরে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জমিদারির কাছারিতে চাকরি করতেন । তার পরবর্তীকালে রবীন্দ্রনাথের ইচ্ছাতেই তিনি শান্তিনিকেতনে অধ্যাপক হিসেবে যোগ দেন । এখানেই শুরু অভিধান সংকলনের কাজ । দীর্ঘ আঠারো বছর ধরে তিনি সংকলনের কাজটি চালিয়ে যান । আরো প্রায় দশ বছর পর শুরু হয় ছাপার কাজ । অবশেষে ১৩৪৪ বঙ্গাব্দে অভিধান প্রকাশ শেষ হয় । অভিধানচর্চার পাশাপাশি অনুবাদ পাঠ্যপুস্তক রচনা করেছেন তিনি । ১৯৫৯ সালে মৃত্যু হয় তাঁর ।

১৯শে মে ঐতিহাসিক বাংলা মাতৃভাষা শহীদ দিবস।

১৯শে মে বাংলা মাতৃভাষা শহীদ
১৯শে মে বাংলা মাতৃভাষা শহীদ

১৯শে মে ঐতিহাসিক বাংলা মাতৃভাষা শহীদ দিবস। ১৯৬১ সালে ১৯শে মে আসামের বরাক উপত্যকার শিলচরে বাংলা ভাষা রক্ষা করার আন্দোলনে ১১ জন শহীদ হয়েছিলেন । শহীদ হয়েছিলেন বিশ্বের প্রথম মহিলা ভাষাশহীদ কমলা ভট্টাচায । শহীদ হয়েছিলেন হিতেশ বিশ্বাস কানাইলাল নিয়োগী সুনীল সরকার সুকোমল পুরকায়স্থ তরণী দেবনাথ শচীন্দ্র পাল কুমুদরঞ্জন দাস সত্যেন্দ্র দেব বীরেন্দ্র সূত্রধর চণ্ডীচরণ সূত্রধর । এই অমর শহীদদের প্রতি আমাদের গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করছি ।